সুন্দর সুন্দরবন, কুৎসিত মানুষ – ২

লীলেন দা তার সাকিন সুন্দরবনে লিখেছিলেন বর্তমানের সুন্দরবনের করুন কাহিনী-

নাচতে নাচতে গাজী সদরুল হাসে- আগে সুন্দরবনের পানিতে ভাসত মরা গাছ। এখন ভাসে পোড়া ডিজেল। ভটভট ভটভট ভটভট… সুন্দরবনের সব নদী এখন ভটভট ভটভট ভটভট। দিন রাত এখন সুন্দরবনে ট্রলার আর জাহাজের মিউজিক বাজে ভটভট। হরিণ পাতা খেতে এসে ট্রলারের শব্দ শুনে দৌড়ায়। বাঘ পানি খেতে এসে জাহাজ দেখে দৌড়ায়। কুমির রোদ পোহাতে ডাঙায় উঠে মানুষ দেখে নদীতে লাফায়। পুরা সুন্দরবনের মালিক এখন ভটভটিওয়ালা পর্যটকরা। বাঘ হরিণ বানর কুমির সবাইকে এখন ভটভটির আওয়াজ থেকে নিজেকে লুকিয়ে খেতে হয়- ঘুমাতে হয় এমনকি সংগমও করতে হয়…

খয়রাপাখ মাছরাঙা
ক্ষুরধার
কালাটুপি মাছরাঙা
সংগ্রাম
অলৌকিক ভোর
সৌন্দর্য
একাকী
শুশুক
বৈধ উজাড়
পাতানিদ্রা
বনরক্ষী দাদু

(চলবে)

সংগৃহীত : তারেক অনু | অনুভ্রমন

Leave a Reply